X

Type keywords like Social Business, Grameen Bank etc.

Innovate Together to Achieve SDGs & Climate Actions Through Social Business

Innovate Together to Achieve SDGs & Climate Actions Through Social Business

Press Release (04 October, 2019)

Call From UN High-Level Side Event on Social Business

Caption for Photo 1: Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus launching the new logo of Global Committee on Social Business for Sustainable Development Goals with fellow VIP members of the committee.

The 74th UN General Assembly’s High-Level Side Event on “Social Business, Youth and Technology” was held at the United Nations Head Quarters, New York on September 26th 2019. The theme for this year’s programme was “Innovate Together for Achieving the Sustainable Development Goals and Climate Actions Through Social Business “.

This High-Level Event on Social Business has been organized annually for three consecutive years at the UN headquarters during United Nations General Assembly, to bring together heads of states and ministers, Nobel Laureates, UN SDG Advocates, representatives from UN agencies and international organizations, business and academic leaders from universities and think tanks, innovators, social entrepreneurs and young leaders to boost ambition and accelerate actions in achieving SDGs.

 

The Global Committee on Social Business for Sustainable Development Goals, chaired by Nobel laureate Professor Muhammad Yunus, aims to build a global cross-sector and cross-generational partner network to innovate together for achieving the Sustainable Development Goals.

This year’s event was hosted by the Government of Ghana, Government of Cape Verde, and Global Committee on Social Business for Sustainable Development Goals, co-sponsored by the Governments of France, Luxembourg, Saint Lucia, in partnership with the Government of Nigeria and co-curated by Yunus Centre, Bangladesh, the Yunus And You Foundation of Germany and Youthink Center of China.

This year’s theme aimed to encourage citizens’ efforts and innovations on climate actions. Opening addresses were made by Hon. Ulisses Correia e Silva, Prime Minister of Cape Verde, H.E. Sunday Dare, Minister of Youth and Sports Development of the Federal Republic Nigeria, former Environment Minister of Brazil and activist Prof. Marina Silva, H.E. Christophe Itier, French High Commissioner for Social and Solidarity Economy and Social Innovation and Dr. Daniel Gustafson, Deputy Director-General of FAO, Rocky Dawuni, UN Goodwill Ambassador for Africa for UN Environment and Professor Muhammad Yunus.

The focus of the deliberations was to build a global ecosystem to support social business, youth and technology for SDGs, promote cross-sector and generational partnerships for innovation and development while building a global network to support youth on technical innovation through social business. Following the opening session an inter-generational dialogue on citizen’s action for achieving SDGs was held followed by a session on Pact for Impact, a global alliance for social and inclusive economy. Later on partners launched their innovations, made commitments and shared their action plan on Climate Action and achieving sustainable development goals.

Notable speakers included Guilia Braga of Connect4Climate, World Bank Group, Dr. Francois Ekoko, Regional Coordinator for Africa, UN Office for South-South Cooperation, Wang Yuan, Board Member, China Climate Action Network, Juan E. Chebly, Founder and President of the Board of The Give Me 5 Campaign for People and Planet.

A large number of participants joined the debate and shared their experiences and expectations. Among them were Kartik Desai, Executive Director, Asha Impact, Krishnee Adnarain Appadoo, Co-Founder and CEO, Mind Matters, Giorgio Alberto Franyuti Kelly, Executive Director, Medical IMPACT, Andrise Bass, CEO, PRIS Consulting LLC, Patrick Sciarratta, Program Director, World Development Foundation, Nadine Clopton, Director and Chair of Youth & Intergenerational Subcommittee, UN NGO Executive Committee, David Watson Mwabila, Co - Founder, Dytech Zambia, Keith Agoada, CEO, Producers Market, Emilie McGlone, Director, Peace Boat US, Tatsuya Yoshioka, Founder, Peace Boat.

A separate hall had to be made available near the UN Headquarters, because an overflowing number of pre-registered guests could not be accommodated in the main venue within UN building . This was done at the courtesy of Japan Society, the flow over participants were offered accommodation at their facilities not far from the UN building. Participants organized their discussions according to the following three topics:

a) Youth@UNGA74: What we will do next? Together and Stronger!

b) Social Business: Sustainable way to build a better world,

c) Technology: Drive transformative change for achieving SDGs faster.

Prominent participants at the Youth@UNGA74 included Miroslav Polzer, CEO, International Association for the Advancement of Innovative Approaches to Global Challenges IAAI, Saffran Mihnar, Director, EarthLanka, Miao Wang, UN Youth Champion of the Earth 2018, Founder, Better Blue, Abisoye Ajayi-Akinfolarin, Director, Pearls Africa Foundation, Hatim el Otmani, President, Atlas For Development, Mary Kate Costello, Senior Policy Analyst & UN Representative, The Hunger Project, Dina Buchbinder, Founder, Education for Sharing, Nyla Rodgers, Founder and CEO, Mama Hope, Camille Laurente, CEO, Hueman Group Media, Aishu Natasimhadevara, Youth Representative, United Nations Department of Global Communications Youth Representatives Steering Committee, Hamzat B Lawal, CEO, Connected Development CODE, Sérgio Ribeiro, CEO, Planetiers.

Yunus also participated in a high level breakfast event organized by newly appointed Director General of FAO, Mr Qu Dongyu. CEOs of Bill and Melinda Gates Foundation, and global agricultural institutions and food and agriculture industries were invited to the breakfast to exchange views with the new Director-General. Professor Yunus was invited to address the guests. He highlighted the issue that rural economy should not be looked as an appendix to the urban economy as supplier of labour to the urban economy. Rural economy should be seen as independent self-reliant dynamic growth centres. Its people should not be viewed as potential labour to be absorbed in the urban economy, they should be seen as entrepreneurs building up the economy of their own, competing with urban economy. It is wrong to categorize people only as farmers, they should be viewed as entrepreneurs all possibilities, including state of the art technology, retailing, transportation etc.

Caption for Photo 2: Professor Muhammad Yunus along with other VVIP guests at a high level breakfast event organized by newly appointed Director General of FAO, Mr. Qu Dongyu.

Appropriate institutions have to be built to support their entrepreneurship. A situation has to be built where routine migration of rural youth to urban centres will come to an end, and urban economies will have tough competition in getting labour from rural areas.

In the evening of September 26, Yunus was a special guest of United Nations Environment Pogramme (UNEP) at their Champion of the Earth award ceremony and dinner, attended by Presidents and Prime ministers, Ministers, business leaders and social activists of various countries. Yunus presented the UNEP Champion of the Earth award to the teenage environmental activist Greta Thunberg’s core team of youth climate strike movement Fridays for Future in Sweden. Six members of Greta’s team, all of the age of 16 or less, came to the stage to receive the Award. Greta Thunberg addressed the ceremony through a video message. She could not attend the ceremony since she had to leave earlier in the day for Montreal, Canada by bus to lead the Friday for Future March in Montreal.

Caption for Photo 3: Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus presented the UNEP Champion of the Earth award to the teenage environmental activist Greta Thunberg’s core team of youth climate strike movement, Fridays for Future from Sweden.

This award was given for remarkable ability to galvanize action and attention around the topic of climate change around the world. Other winners of the award were the country of Costa Rica, climate scientist Professor Katharine Hayhoe, the company Patagonia, Chinese mobile app Ant Forest, who were honoured for their remarkable achievements towards environmental protection.

Professor Yunus spoke at Whitaker Peace and Development Initiative’s gala dinner and reception on the next day, hosted by its founder, SDG Advocate, UNESCO Special Envoy for Peace and Reconciliation, and famous Hollywood actor Forest Whitaker. Host committee of the dinner included his friend Professor Yunus and many other dignitaries including award winning Hollywood actor De Caprio, award winning American hip hop star Swizz Beatz, Grady Spivey, CEO and founder of Full Surface Management, an innovative music marketing firm which defined the careers of many multi platinum recording artists. The dinner was held at the attractively decorated Gotham Hall, at Broadway, New York and attended by 250 distinguished personalities of the US. Prime Minister of Norway, Erna Solberg, Co-Chair of SDG Advocates, Deputy Secretary General of the United Nations, Amina Mohammed, and Professor Yunus addressed the participants. Since Whitaker’s initiatives are focused on the youth in the Uganda, Rwanda , South Sudan, and the USA , Yunus drew attention to the creative power of the new generation of young people, no matter which country they are growing up in. He said youth should be aware of their enormous power as individuals, and get ready to use the power fully. If they don’t use the power it will be wasted away for nothing. He said, it would be like you had Aladin’s lamp in your hand, but you never touched it, gene was never called into action. He emphasized the importance of imagination. He invited them to imagine all the impossible things they wish to see happen. Don’t be afraid or stingy in your imagination, he warned them. He said, imagination has almost a mystical power, if you imagine, only then it can happen. If you don’t imagine, it has no chance of happening. Go ahead, imagine. Make it happen, — he gave out the call for them.

 

 

End

 

প্রেস রিলিজ

জাতি সংঘে সামাজিক ব্যবসার উপর উচ্চ পর্যায়ের সম্মেলন অনুষ্ঠিতটেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জন ওৃ জলবায়ু রক্ষায় সামাজিক ব্যবসার মাধ্যমে সম্মিলিত উদ্ভাবনে এগিয়ে আসার আহ্বান

২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ নিউ ইয়র্কে জাতি সংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৪তম বৈঠকের পাশাপাশি “সামাজিক ব্যবসা, তরুণ সমাজ ও প্রযুক্তি” শীর্ষক একটি উচ্চ পর্যায়ের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এ বছরের কর্মসূচির বিষয়বস্তু ছিল “টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যসমূহ অর্জন ও জলবায়ু রক্ষায় সামাজিক ব্যবসার মাধ্যমে সম্মিলিত উদ্ভাবন (Innovate Together for Achieving the Sustainable Development Goals and Climate Actions Through Social Business)|”

সামাজিক ব্যবসার উপর উচ্চ পর্যায়ের এই বাৎসরিক সম্মেলনটি গত তিন বছর ধরে জাতি সংঘ সাধারণ পরিষদের বৈঠকের পাশাপাশি অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। জাতি সংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যগুলোকে এগিয়ে নিতে বিভিন্ন দেশের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধান, নোবেল লরিয়েট, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যের অ্যাডভোকেট, জাতি সংঘ ও বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠনের প্রতিনিধি, ব্যবসায়ী, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও থিংক ট্যাংকের নেতা, উদ্ভাবক, সামাজিক উদ্যোক্তা ও তরুণ সমাজের প্রতিনিধিরা এই সম্মেলনে অংশ নিয়ে থাকেন।

উল্লেখ্য যে, নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূসের সভাপতিত্বে “টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যসমূহ অর্জনে সামাজিক ব্যবসা” বিষয়ক গ্লোবাল কমিটির উদ্দেশ্য জাতি সংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যগুলো অর্জনে সম্মিলিতভাবে প্রযুক্তি ও কর্মসূচি উদ্ভাবন করতে আন্তঃসেক্টর ও আন্তঃপ্রজন্ম পার্টনারশীপ গড়ে তোলা।

সম্মেলনের আয়োজক ছিল ঘানা সরকার, কেইপ ভার্দে সরকার ও টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনে সামাজিক ব্যবসার উপর গ্লোবাল কমিটি। সহ-আয়োজক ছিল ফ্রান্স, লুক্সেমবার্গ, সান্তা লুসিয়া ও নাইজেরিয়ার সরকারসমূহ। সহযোগিতায় ছিল বাংলাদেশের ইউনূস সেন্টার, জার্মানীর ইউনূস এন্ড য়ু ফাউন্ডেশন এবং চীনের ইয়ু-থিংক সেন্টার।

এ বছরের বিষয়বস্তুর লক্ষ্য ছিল জলবায়ু রক্ষায় নাগরিকদের নিজস্ব উদ্যোগ ও উদ্ভাবনকে উৎসাহিত করা। সম্মেলনে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন কেইপ ভার্দের প্রধানমন্ত্রী মাননীয় ইউলিসেস করেইয়া এ সিলভা, নাইজেরিয়ার যুব ও ক্রীড়া উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী মাননীয় সানডে ডেয়ার, ব্রাজিলের সাবেক পরিবেশ মন্ত্রী ও পরিবেশকর্মী প্রফেসর মারিনা সিলভা, সামাজিক ও সংহতি অর্থনীতি এবং সামাজিক উদ্ভাবন বিষয়ক ফরাসী হাই কমিশনার মাননীয় ক্রিস্টোফে ইতিয়ের, জাতি সংঘ খাদ্য ও কৃষি সংস্থার উপ-মহাপরিচালক ড্যানিয়েল গুস্তাফসন, আফ্রিকায় জাতি সংঘের পরিবেশ বিষয়ক শুভেচ্ছা দূত রকি দায়ুনি এবং নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস।

সম্মেলনে আলোচনার মূল বিষয় ছিল সামাজিক ব্যবসাকে সহায়তা দিতে একটি গেøাবাল ইকো-সিস্টেম গড়ে তোলা, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যসমূহ অর্জনে তরুণ সমাজ ও প্রযুক্তি, এবং উদ্ভাবন ও উন্নয়নের জন্য আন্তঃসেক্টর ও আন্তঃপ্রজন্ম সহযোগিতাকে উৎসাহিত করার পাশাপাশি সামাজিক ব্যবসার মাধ্যমে প্রযুক্তিগত উদ্ভাবনে তরুণ সমাজকে সহায়তা দিতে একটি গেøাবাল নেটওয়ার্ক তৈরী করা। উদ্বোধনী সেশনের পরেই টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনে নাগরিকদের কর্মসূচির উপর একটি আন্তঃপ্রজন্ম সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। এর পর ছিল সামাজিক ও অন্তর্ভূক্তিমূলক অর্থনীতির উপর একটি বৈশ্বিক জোট “প্যাক্ট অর ইমপ্যাক্ট” এর উপর একটি সেশন। এরপর পার্টনাররা তাঁদের উদ্ভাবনামূলক কাজগুলো চালু করেন, স্ব-স্ব প্রতিশ্রæতি উচ্চারণ করেন এবং জলবায়ু রক্ষা ও টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যসমূহ অর্জনে তাঁদের কর্মপরিকল্পনাগুলো নিয়ে পরস্পরের মধ্যে মত বিনিময় করেন।

অনুষ্ঠানে উল্লেখযোগ্য বক্তাদের মধ্যে ছিলেন বিশ্ব ব্যাংক গ্রæপের কানেক্ট-ফর-ক্লাইমেট এর গুইলিয়া ব্রাগা, দক্ষিণ-দক্ষিণ সহযোগিতা বিষয়ক জাতি সংঘ কার্যালয়ের আফ্রিকার আঞ্চলিক সমন্বয়কারী ড. ফ্রাংকো একোকো, চায়না ক্লাইমেট অ্যাকশন নেটওয়ার্কের পরিচালনা পরিষদ সদস্য ওয়াং ইউয়ান, গিভ মি ফাইভ ক্যাম্পেইন ফর পিপল এন্ড প্ল্যানেট এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট জুয়ান ই শেবলী।

বহু সংখ্যক অংশগ্রহণকারী তাঁদের অভিজ্ঞতা ও প্রত্যাশা নিয়ে বিতর্কে যোগ দেন। এঁদের মধ্যে ছিলেন আশা ইমপ্যাক্ট এর নির্বাহী পরিচালক কার্তিক দেশাই, মাইন্ড ম্যাটারস এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কৃশনি আদনারাইন আপাদু, মেডিকেল ইমপ্যাক্ট এর নির্বাহী পরিচালক গিওর্গিয়ো আলবার্তো ফ্রানিউতি কেলী, পিআরইএস কনসাল্টিং এলএলসি এর প্রধান নির্বাহী আন্দ্রিসে বেইস, ওয়ার্ল্ড ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন এর কর্মসূচি পরিচালক প্যাট্রিক সিয়ারাত্তা, জাতি সংঘের এনজিও বিষয়ক নির্বাহী কমিটির ইয়ুথ এন্ড ইন্টারজেনারেশনাল সাব-কমিটির পরিচালক ও চেয়ারপার্সন ন্যাদিন কø্যাপটন, ডাইটেক জাম্বিয়া এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ডেভিড ওয়াটসন মোয়াবিলা, প্রডিউসারস মার্কেট এর প্রধান নির্বাহী কীথ আগোয়াদা, পীস বোট ইউএস এর পরিচালক এমিলি ম্যাকগেøানে, পীস বোট এর প্রতিষ্ঠাতা টাটসুয়া ইয়োশিয়োকা প্রমূখ।

অংশগ্রহণকারীদের সংখ্যাধিক্য এবং আগে থেকে রেজিস্ট্রেশন করা অনেক অংশগ্রহণকারীকে জাতি সংঘ কার্যালয়ের মূল হলে জায়গা দেয়া সম্ভবপর না হওয়ায় জাপান সোসাইটির সৌজন্যে জাতি সংঘ সদর দপ্তরের নিকটেই আরেকটি হলে অনেকের থাকার ব্যবস্থা করা হয়।

নিম্নলিখিত বিষয়বস্তুগুলোকে কেন্দ্র করে সম্মেলনের আয়োজন করা হয়:

১.        ইয়ুথ@ইউএনজিএ৭৪: আমরা এরপর কী করবো? সম্মিলিত ও অধিকতর শক্তিতে!

২.       সামাজিক ব্যবসা: টেকসই উপায়ে একটি উন্নততর পৃথিবী গড়ে তোলার লক্ষ্যে।

৩.       প্রযুক্তি: টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যগুলো দ্রæততর অর্জনের উদ্দেশ্যে মৌলিক পরিবর্তনের চেষ্টায়।

ইয়ুথ@ইউএনজিএ৭৪ সেশনে উল্লেখযোগ্য অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ছিলেন ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন ফর দ্য অ্যাডভান্সমেন্ট অব ইনোভেটিভ অ্যাপ্রোচেস টু গ্লোবাল চ্যালেঞ্জেস আইএএআই এর প্রধান নির্বাহী মিরো¯øাভ পোলজার, আর্থ-লংকা এর পরিচালক সাফরান মিহনার, জাতি সংঘ ইয়ুথ চ্যাম্পিয়ন অব দ্য আর্থ ২০১৮ এবং বেটার বøু এর প্রতিষ্ঠাতা মিয়াও ওয়াং, পার্লস আফ্রিকা ফাইন্ডেশন এর পরিচালক আবিসোয়ে আজায়ি-আকিনফোলারিন, এটলাস ফর ডেভেলপমেন্ট এর প্রেসিডেন্ট হাতিম এল অটমানি, হাঙ্গার প্রজেক্ট এর সিনিয়র পলিসি এনালিস্ট ও জাতি সংঘ প্রতিনিধি ম্যারি কেইট কসটেল্লো, এডুকেশন ফর শেয়ারিং এর প্রতিষ্ঠাতা ডিনা বুকবিন্ডার, মামা হোপ এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী নাইলা রজার্স, হিউম্যান গৃুপ মিডিয়া এর প্রধান নির্বাহী ক্যামিলে লরেন্টে, জাতি সংঘ গেøাবাল কমিউনেকেশানস ইয়ুথ রিপ্রেজেনটেটিভ স্টিয়ারিং কমিটি বিভাগের ইয়ুথ রিপ্রেজেনটেটিভ আইশু নাতাসিমহাদেভারা, কানেকটেড ডেভেলপমেন্ট সিওডিই এর প্রধান নির্বাহী হামজাত বি লাওয়াল, প্ল্যানেটিয়ার্স এর প্রধান নির্বাহী সের্গিও রাবিয়েরো প্রমূখ।

প্রফেসর ইউনূস জাতি সংঘ খাদ্য ও কৃষি সংস্থার নবনিযুক্ত মহাপরিচালক কো দোংইয়ু আয়োজিত একটি উচ্চ পর্যায়ের প্রাতঃরাশ অনুষ্ঠানে যোগ দেন। বিল এন্ড মেলিন্ডা গেট্স ফাউন্ডেশন এবং বিশ্বের প্রখ্যাত খাদ্য ও কৃষি এবং কৃষি শিল্প প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রধান নির্বাহীদের সাথে নবনিযুক্ত মহাপরিচালকের মতামত বিনিময়ের উদ্দেশ্যে আয়োজিত এই সভায় প্রফেসর ইউনূসকে বক্তৃতা দিতে আমন্ত্রণ জানান হয়। তাঁর বক্তব্যে প্রফেসর ইউনূস বলেন যে, গ্রামীণ অর্থনীতিকে শহুরে অর্থনীতির জন্য শ্রম সরবরাহের একটি উপাঙ্গ হিসেবে দেখলে চলবে না; একে একটি স্বতন্ত্র, আত্ম-নির্ভর ও গতিশীল উৎপাদন কেন্দ্র হিসেবে বিবেচনা করতে হবে। গ্রামের মানুষকে শহরের অর্থনীতির জন্য শ্রমের যোগানদার হিসেবে না দেখে তাদেরকে বরং উদ্যোক্তা হিসেবে এবং নিজেদের শক্তিতে দেশের অর্থনীতি গড়ে তোলায় শহুরে অর্থনীতির সাথে প্রতিযোগিতাকারী হিসেবে দেখতে হবে। তাদেরকে শুধু কৃষক হিসেবে দেখাটা ভুল Ñ তাদেরকে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি, খুচরা বিপণন, পরিবহন ইত্যাদি সকল খাতে সম্ভাবনাপূর্ণ উদ্যোক্তা হিসেবে দেখতে হবে।

তাদের উদ্যোক্তা শক্তি কাজে লাগাতে উপযুক্ত প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে হবে। এমন একটা পরিবেশ তৈরী করতে হবে যেখানে গ্রাম থেকে তরুণদের শহর অভিমুখে অভিবাসন বন্ধ হবে এবং শহরের অর্থনীতিকে গ্রাম থেকে শ্রমিক পাবার জন্য কঠিন প্রতিযোগিতায় অবতীর্ণ হতে হবে।

২৬ সেপ্টেম্বর জাতি সংঘ পরিবেশ কর্মসূচি’র পুরস্কার বিতরণ উপলক্ষ্যে আয়োজিত নৈশ ভোজে প্রফেসর ইউনূসকে বিশেষ অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয় যেখানে আরো অংশ নেন বিভিন্ন দেশের প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী, ব্যবসায়ী নেতা ও সমাজকর্মীগণ। প্রফেসর ইউনূস জাতি সংঘ পরিবেশ কর্মসূচি’র “চ্যাম্পিয়ন অব দ্য আর্থ” পুরস্কার প্রদান করেন। গ্রেটা থুনবার্গের পরিবেশ আন্দোলন “ফ্রাইডেজ ফর ফিউচার” এর মূল কিশোর টীম পুরস্কার গ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের উদ্দেশ্য গ্রেটা থুনবার্গের ভিডিও বক্তৃতার পর তাঁর টীমের ৬ জন সদস্য যাঁদের সকলের বয়স ১৬ বছরের নিচে পুরস্কার নিতে মঞ্চে আসেন। মিস গ্রেটা অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পারেননি কেননা তাঁকে ঐ দিনই সকালে বাস যোগে পর দিন কানাডার মন্ট্রিলে অনুষ্ঠেয় ফ্রাইডেজ ফর ফিউচার মার্চে অংশ নিতে যেতে হয়েছিল।

পৃথিবী ব্যাপী জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে ইতিবাচক ও উল্লেখযোগ্য অবদানের জন্য এই পুরস্কারটি দেয়া হয়ে থাকে। পুরস্কার বিজয়ী অন্যান্যরা ছিলেন কোস্টারিকা (দেশ), জলবায়ু বিজ্ঞানী প্রফেসর ক্যাথরিন হেইহো, পাতাগনিয়া কোম্পানী ও চায়নার মোবাইল অ্যাপ অ্যান্ট ফরেস্ট। পরিবেশ রক্ষায় উল্লেখযোগ্য অবদানের জন্য এঁদেরকে সম্মানিত করা হয়।

পর দিন প্রফেসর ইউনূস হুইটেকার পিস এন্ড ডেভেলপমেন্ট ইনিসিয়েটিভ এর জমকালো নৈশভোজ ও অভ্যর্থনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন। অনুষ্ঠানটির আয়োজন করেন সংস্থাটির প্রতিষ্ঠাতা জাতি সংঘ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যের অন্যতম অ্যাডভোকেট এবং শান্তি ও মীমাংসা বিষয়ক ইউনেস্কোর বিশেষ দূত প্রখ্যাত হলিউড অভিনেতা ফরেস্ট হুইটেকার। এই নৈশ ভোজের অভ্যর্থনা কমিটিতে ছিলেন তাঁর বন্ধু প্রফেসর ইউনূস, অস্কার জয়ী হলিউড অভিনেতা লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও, মার্কিন হিপ হপ স্টার সুইজ বিটজ, বিশ্বের বহু বিখ্যাত শিল্পীর ক্যারিয়ার গঠনকারী উদ্ভাবনশীল সঙ্গীত বিপনন প্রতিষ্ঠান ফুল সার্কেল ম্যানেজমেন্ট এর প্রধান নির্বাহী ও প্রতিষ্ঠাতা গ্র্যাডি স্পিভির মতো প্রসিদ্ধ ব্যক্তিগণ। নিউ ইয়র্কের ব্রডওয়েতে অবস্থিত সুশোভিত গোথাম হলে আয়োজিত এই নৈশভোজে যোগ দেন যুক্তরাষ্ট্রের ২৫০ জন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব। নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী ও এসডিজি অ্যাডভোকেট গ্রæপের কো-চেয়ার এরনা সোলবার্গ, জাতি সংঘের উপ-মহাসচিব আমিনা মোহামেদ ও প্রফেসর ইউনূস আমন্ত্রিত অতিথিদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন। যেহেতু হুইটেকার এর কর্মসূচিগুলোর মূল টার্গেট উগান্ডা, রুয়ান্ডা, দক্ষিণ সুদান ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তরুণ সমাজ, প্রফেসর ইউনূস তরুণ প্রজন্মের সৃষ্টিশীল ক্ষমতার প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তা তারা যে-কোনো দেশেই বেড়ে উঠুক না কেন। তিনি বলেন যে, তরুণদেরকে তাদের স্ব-স্ব অপরিসীম ক্ষমতা সম্বন্ধে সচেতন হতে হবে এবং এই ক্ষমতার পূর্ণ ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। নতুবা এই ক্ষমতার সম্পূর্ণ অপচয় ঘটবে। তিনি বলেন, এটা অনেকটা আলাদিনের চেরাগের মতো যা তোমার হাতে ছিল কিন্তু তুমি এটা ঘষে এর দৈত্যকে ডেকে এনে কখনো কোনো কাজে লাগাওনি। তিনি তরুণদের কল্পনা শক্তির উপর জোর দেন এবং তারা যেসব অসম্ভব জিনিষ ঘটতে দেখতে চায় তাদেরকে তা কল্পনা করতে বলেন। তিনি বলেন, তোমরা কল্পনা করতে কখনো ভয় পাবে না বা কার্পণ্য করবে না। তিনি আরো বলেন, কল্পনার একটা জাদুকরী শক্তি আছে; তুমি কল্পনা করলেই এটা ঘটতে পারে, কিন্তু তুমি কল্পনা না করলে এটা কখনোই বাস্তবে রূপ নেবে না। তোমরা এগিয়ে যাও Ñ তোমাদের সকল কল্পনা শক্তি নিয়ে। তোমাদের কল্পনাকে বাস্তবে রূপ দাও।

Related

In Memory of Abed

In Memory of Abed
Muhammad YunusAbed has left. But it is not possible to bid farewell to him. He remains with us as our companion forever. Since the Liberation War he is in the very grain of our society. There is no layer and sub-layer of our societal make up which has not been......

Yunus in Japan: Meets Rola, Bangladeshi Japanese Super Model, Launches Yunus Yoshimoto Social Action Company, Addresses Social Tech Summit and Social Business Forum Osaka

Yunus in Japan: Meets Rola, Bangladeshi Japanese Super Model, Launches Yunus Yoshimoto Social Action Company, Addresses Social Tech Summit and Social Business Forum Osaka
Yunus Raises Question “Who Would Rule The World: Human Beings or Artificial Intelligence?”Japan's glamorous super model, actress, singer, TV personality, and author Rola came to meet Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus in his hotel while he was on a social busin...

Speaker of German Parliament meets Yunus to Discuss Social Business

Speaker of German Parliament meets Yunus to Discuss Social Business
Press Release (November 8, 2019)President of German Parliament, Wolfgang Schäuble invited Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus to have an one-on-one meeting in his office at the Bundestag, in Berlin on November 6 to discuss economic issues related to social business...

Tenth One Young World Summit Held in London - Yunus Urged Youth to Reversing the Environmental Degradation and Wealth Concentration

Tenth One Young World Summit Held in London - Yunus Urged Youth to Reversing the Environmental Degradation and Wealth Concentration
Press Release (October 29, 2019)Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus and Her Royal Highness Meghan Markle, Duchess of Sussex together on stage during the opening ceremony of the One Young World summit at the Royal Albert Hall, in London on 22 October 2019. The event ...

Present World is on a Disaster Path - Yunus Warns Former Presidents and Prime Ministers in a Side Event During UN Week in NY

Present World is on a Disaster Path - Yunus Warns Former Presidents and Prime Ministers in a Side Event During UN Week in NY
Press Release (2-OCT-2019)Caption for Photo 1: Professor Yunus at the special IOC dinner hosted by Thomas Bach, President of the International Olympic Committee. Guests included Laura Chinchilla, ex President of Costa Rica, Luis Moreno, President of the Inter-American D...

Report of Commission on Modern Day Slavery Launched in UN.

Report of Commission on Modern Day Slavery Launched in UN.
Press Release (30 September, 2019)Co-Convenor Yunus calls for Ensuring Zero Financial Exclusion by Creating Social Business Banks for the Poor"Financial sector leaders must work not just to address modern slavery and human trafficking at the margins, but also by rethink...

Old Roads Can Only Take Us to Old Destination - Yunus’s Message to Niti Aayog, India’s Highest Policy Think Tank

Old Roads Can Only Take Us to Old Destination -  Yunus’s Message to Niti Aayog, India’s Highest Policy Think Tank
Press Release ( September 18, 2019)Delhi, September 16:Caption for Photo 1: Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus at the 20th Anniversary of the Sa-Dhan, the Association of microfinance institutions of India, addressing the audience of 500 as the Chief Guest.During hi...

Yunus Opens Grameen China Branch in Shenzhen, China

Yunus Opens Grameen China Branch in Shenzhen,  China
Yunus Centre Press Release (29 July, 2019)Caption for Photo: Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus inaugurated the opening ceremony of Grameen China’s branch in the Futian district in Shenzhen, China on July 27, 2019. This is the third branch under the collabor...