Yunus Draws Attention to Danger of Wealth Concentration to UK Audience

Press Release (16 November, 2017)

Nobel Laureate Professor Yunus delivering a public lecture to a packed audience of 500 students and academics at the Old Theatre of the London School of Economics (LSE) on the theme of three zeroes. Photo Credit: Yunus Centre

Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus was in the United Kingdom for four days for events organized around his new book "A World of Three Zeroes" which focusses on how we can create a world of zero poverty, zero unemployment and zero net carbon emissions.

The first stop of the tour was at the London School of Economics where he was invited by the Director Minouche Shafik to deliver a public lecture on the theme of three zeroes. He addressed an audience of 500 students and academics in the Old Theatre of the LSE, and challenged the youngsters to move away from conventional way of doing things as those created and perpetuated the huge global economic and environmental challenges that the world now faces. He talked about the vision of 'A World of Three Zeroes' and outlined the role that he believes the young have to play in achieving that world. 

 

The talk was followed by a Q and A and a book signing session. Afterwards, the director of the school hosted a dinner for Profesor Yunus with a selected academics who are working the field of social and economic development. Professor Yunus has a long relationship with the LSE and received an honorary degree from the college in 2011.

Professor Yunus spoke at various book events  organized at the Royal Society of Arts, the Royal Automobile Club, and Conway Hall. He also had media appointments with Sky News live TV, BBC News Report, BBC World Service, Today on BBC Radio 4, and the Evening Standard. 

He also delivered a talk at the Overseas Development Institute a development think tank in London on the topics of wealth concentration, the role of artificial intelligence in taking away people's employment and how a world of three zeroes can be achieved in the context of these.

The message that Professor Yunus gave through his talks is that the world with the rapidly growing wealth concentration - with 8 persons having more wealth than 4 billion poorest people on the planet - is not a sustainable one. He said that this is not an economic system rather it's a mockery of one.  He argues that  our current system focussed on creating employment is merely exacerbating the wealth concentration issue. He said that the only way to combat this and to ensure that wealth is spread more equitably is to create social business and support entrepreneurship at the grassroots, and gave examples of how this has been done by Grameen Bank and other social businesses in Bangladesh and in other countries with great and wide impact. His experience leads him to believe that a world of three zeroes- zero poverty, zero unemployment and zero net carbon emissions is possible within our lifetimes. 

Professor Yunus' visit to the UK ended with a talk at Cambridge University organized by the Cambridge Society for Social and Economic Development which was attended at full capacity by 500 cross disciplinary students at the Lady Mitchell Hall the largest auditorium at the university.  He was accompanied in the UK by Lamiya Morshed, Executive Director of the Yunus Centre. Later, Professor Yunus attended a formal  dinner hosted by  the Lady Michell Hall attended by the fellows of the college.

Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus addressing 500 students of Cambridge University at Lady Mitchell Hall on his microcredit and social business journey over 40 years. Photo Credit: Yunus Centre

Nobel Laureate Professor Muhammad Yunus addressing 500 students of Cambridge University at Lady Mitchell Hall on his microcredit and social business journey over 40 years. Photo Credit: Yunus Centre

 Nobel Laureate Professor Yunus delivering a public lecture to a packed audience of 500 students and academics at the Old Theatre of the London School of Economics (LSE) on Saturday evening.  Photo Credit: Yunus Centre

------

প্রেস রিলিজ

সম্পদ কেন্দ্রীকরণের বিপদ সম্পর্কে যুক্তরাজ্যের শ্রোতাদের মনোযোগ আকর্ষণ  করলেন প্রফেসর ইউনূস

নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস তাঁর গ্রন্থ “A World of Three Zeros” -কে কেন্দ্র করে আয়োজিত বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গত চার দিন যুক্তরাজ্য সফর করেন। তাঁর এই নতুন প্রকাশিত বইটিতে কীভাবে শূন্য দারিদ্র, শূন্য বেকারত্ব ও শূন্য নীট কার্বন নিঃস্বরণ-এর একটি নতুন পৃথিবী তোলা যায় সে বিষয়ে জোর দেয়া হয়েছে।

প্রফেসর ইউনূসের যুক্তরাজ্য সফর শুরু হয় লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিক্স-এ একটি গণ বক্তৃতা প্রদানের মধ্য দিয়ে। প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক মিনুশ শফিকের আমন্ত্রণে প্রদত্ত তাঁর এই বক্তৃতার বিষয়বস্তু ছিল তাঁর “তিন শূন্য”-র তত্ত্ব। লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিক্স-এর ওল্ড থিয়েটারে প্রদত্ত ৫০০ ছাত্র ও শিক্ষকের উদ্দেশ্যে তাঁর এই বক্তৃতায় প্রফেসর ইউনূস নতুন প্রজন্মকে প্রচলিত ধ্যান-ধারণা ও কর্মকান্ড - যা বৈশ্বিক অর্থনীতি ও পরিবেশের জন্য বড় ধরনের হুমকি সৃষ্টিকারী বর্তমান অর্থনৈতিক কাঠামোটি তৈরী করেছে ও তাকে টিকিয়ে রেখেছে - তা থেকে বেরিয়ে আসতে চ্যালেঞ্জ জানান। তিনি তাঁর “তিন শূন্য’র পৃথিবী”-র দর্শন নিয়ে আলোচনা করেন এবং এ ধরনের একটি পৃথিবী নির্মাণে তরুণ প্রজন্ম কী ভূমিকা পালন করতে পারে বলে তিনি মনে করেন তার দিক-নির্দেশনা দেন।

তাঁর বক্ততার পর ছিল প্রশ্নোত্তর পর্ব ও বই স্বাক্ষরের সেশন। এরপর প্রফেসর ইউনূস তাঁর সম্মানে লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিক্স-এর পরিচালক আয়োজিত একটি ভোজসভায় যোগ দেন যেখানে আরো অংশ নেন সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে কাজ করছেন প্রতিষ্ঠানটির এমন বিশিষ্ট অধ্যাপকগণ। উল্লেখ্য যে, লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিক্স-এর সাথে প্রফেসর ইউনূসের সম্পর্ক দীর্ঘদিনের এবং ২০১১ সালে কলেজটি তাঁকে একটি সম্মানসূচক ডিগ্রী প্রদান করে।

এরপর প্রফেসর ইউনূস তাঁর বইটিকে কেন্দ্র করে ‘রয়্যাল সোসাইটি অব আর্টস’, ‘রয়্যাল অটোমোবাইল ক্লাব’ ও ‘কনওয়ে হল’-এ আয়োজিত বিভিন্ন অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দেন। এছাড়াও তিনি ‘স্কাই নিউজ লাইভ টিভি’, ‘বিবিসি নিউজ রিপোর্ট’, ‘বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিস’, ‘বিবিসি রেডিও ফোর’-এর ‘টুডে’, এবং ‘ইভনিং স্ট্যান্ডার্ড’-কে সাক্ষাৎকার দেন।

এছাড়াও তিনি উন্নয়ন বিষয়ক লন্ডনের একটি থিংক ট্যাংক ‘ওভারসীজ ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউট’-এ বক্তৃতা দেন। তাঁর বক্তৃতার বিষয়বস্তু ছিল সম্পদ কেন্দ্রীকরণ, কীভাবে আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স মানুষকে বেকার করে ফেলছে, এবং এসবের প্রেক্ষাপটে “তিন শূন্য”র একটি পৃথিবী কীভাবে গড়ে তোলা যায়।

তাঁর বক্তৃতাগুলোয় প্রফেসর ইউনূস যে বার্তাটি পৌঁছে দেন তা হচ্ছে বর্তমান বিশ্ব, যেখানে সম্পদ দ্রুত ও ক্রমাগত কেন্দ্রীভূত হয়ে চলেছে - যেখানে মাত্র ৮ জন ব্যক্তির নিকট এই গ্রহের ৪০০ কোটি দরিদ্র মানুষের সম্মিলিত সম্পদের চেয়ে বেশী সম্পদ রয়েছে - তা টিকে থাকতে পারে না। তিনি বলেন যে, অর্থনৈতিক ব্যবস্থার নামে এই ব্যবস্থাটি একটি তামাশা মাত্র। তিনি যুক্তি দেখান যে, চাকুরী সৃষ্টির উপর গুরুত্ব দেয়া বর্তমান অর্থনৈতিক ব্যবস্থাটি সম্পদ কেন্দ্রীকরণের সমস্যাটিকে বরং আরো গভীর করছে। তিনি বলেন যে, এই সমস্যাটি মোকাবেলা করার ও সম্পদের বন্টনকে আরো সুষম করার একমাত্র উপায় হচ্ছে সামাজিক ব্যবসা সৃষ্টি করা ও তৃণমূল পর্যায়ে উদ্যোক্তা গড়ে উঠতে সহায়তা করা। এ প্রসঙ্গে তিনি বাংলাদেশে গ্রামীণ ব্যাংক এবং বাংলাদেশে ও পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে অন্য সামাজিক ব্যবসাগুলো কীভাবে সফলতার সাথে কাজটি করে যাচ্ছে তার উদাহরণ দেন। তিনি আরো বলেন যে, তাঁর অভিজ্ঞতা থেকেই তাঁর এই বিশ্বাস জন্মেছে যে, আমাদের জীবদ্দশাতেই “তিন শূন্য” অর্থাৎ শূন্য দারিদ্র, শূন্য বেকারত্ব ও শূন্য নীট কার্বন নিঃস্বরণ-এর একটি নতুন পৃথিবী অর্জন সম্ভব।

ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘ক্যামব্রিজ সোসাইটি ফর সোশ্যাল এন্ড ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট’ আয়োজিত একটি ভাষণের মধ্য দিয়ে প্রফেসর ইউনূসের যুক্তরাজ্য সফর শেষ হয়। বিশ্ববিদ্যালয়টির বৃহত্তম অডিটোরিয়াম ‘লেডি মিশেল হল’-এ আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে তাঁর বক্তৃতা শুনতে বিভিন্ন ডিসিপ্লিনের ৫০০ ছাত্র-ছাত্রী সমবেত হয়। এরপর প্রফেসর ইউনূস তাঁর সম্মানে লেডি মিশেল হল আয়োজিত একটি আনুষ্ঠানিক নৈশভোজে অংশগ্রহণ করেন যেখানে  আরো যোগ দেন কলেজের ফেলোবৃন্দ। যুক্তরাজ্য সফরে প্রফেসর ইউনূসের সঙ্গে ছিলেন ইউনূস সেন্টারের প্রধান নির্বাহী লামিয়া মোর্শেদ।

hard-extreme.com tellyseries